1. admin@dainikfatikchhari.com : ForkanMahmud :
এই বছর হজ্ব পালনে সৌদি যেতে পারবেন না বিদেশি নাগরিক - দৈনিক ফটিকছড়ি
রবিবার, ০৯ অগাস্ট ২০২০, ১০:৫৯ অপরাহ্ন

এই বছর হজ্ব পালনে সৌদি যেতে পারবেন না বিদেশি নাগরিক

এডিটর-দৈনিক ফটিকছড়ি
  • আপডেট টাইম সোমবার, ১৩ জুলাই, ২০২০
  • ১১৫ বার

আন্তজাতিক ডেস্ক: বিশ্বব্যাপি করোনাভাইরাসে কারণে এ বছর জনস্বাস্থ্যের ঝুঁকি বিবেচনা করে বাংলাদেশসহ বিশ্বের ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা এই বছর হজ পালনে যেতে পারবেনা।কারণ হিসাবে সীমিত পরিসরে হজ পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি আরব সরকার। শুধু মাত্র সৌদি নাগরিক এবং সেখানে অবস্থানরত প্রাবসীরা হজ্বে অংশ গ্রহণ করতে পারবে।

গত সোমবার সন্ধ্যায় সৌদি আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফয়সাল বিন ফারহান আল সৌদ এ বিষয়টি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আব্দুল মোমেনকে আনুষ্ঠানিকভাবে জানান। মঙ্গলবার এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

এতে বলা হয় “সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, কোভিড-১৯ পরিস্থিতির কারণে এ বছর প্রথাগত হজ পালন হচ্ছে না। এ বছর কেবলমাত্র সীমিত সংখ্যক (অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক মিলিয়ে এক হাজারের কম) লোককে হজ করতে দেয়া হবে।”

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, চলমান পরিস্থিতি বিবেচনায় সৌদি সরকারের এই সিদ্ধান্তকে ‘সঠিক’ বলে অভিহিত করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন।

ধর্ম সচিব মো. নুরুল ইসলাম বেনারকে বলেন, “সৌদি আরব জানিয়েছে, করোনা মহামারির কারণে এ বছর বাংলাদেশসহ কোনো দেশ থেকে কেউ হজে অংশ নিতে পারছেন না। এ জন্য বাংলাদেশের সরকার, প্রধানমন্ত্রী এবং ধর্মপ্রাণ নাগরিকদের কাছে দুঃখ প্রকাশ করেছেন তাঁরা।”

সচিব জানান, “দেশটিতে অবস্থানরত সীমিত সংখ্যক বিদেশি মুসলিমদের নিয়ে এবার হজের আনুষ্ঠানিকতা পালন করা হবে বলে জানিয়েছে সৌদি আরব।”

সৌদি সরকার জানিয়েছে, জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষে ২৮ জুলাই থেকে হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। সৌদি সরকারের তথ্যমতে, প্রতি বছর বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে প্রায় ২০ লাখ লোক একসাথে মুসলমানদের সবচেয়ে এই বড় জমায়েতে অংশ নেন।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের জানায়, এ বছর এক লাখ ৩৭ হাজার ১৯১ বাংলাদেশির হজে যাওয়ার কথা ছিল। এর মধ্যে ৬৪ হাজার ৬০০ নিবন্ধন করেছিলেন।

সৌদি সরকারের এই সিদ্ধান্তের কারণে এ বছর যারা হজে যেতে পারছেন না তাঁরা চাইলে নিবন্ধনের টাকা ফেরত নিতে পারবেন বলে জানান ধর্ম সচিব।

তিনি বেনারকে বলেন, “হজে যেতে ইচ্ছুক যেসব ব্যক্তি ২০২০ সালে নিবন্ধন করেছিলেন, তাঁরা চাইলে জমা দেওয়া টাকা ফেরত নিতে পারবেন।

তবে কেউ টাকা রেখে দিলে তিনি আগামী বছর হজে যাওয়ার ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন বলে জানান ধর্ম সচিব।

সৌদি আরবের সীমিত আকারে হজ পালনের এই সিদ্ধান্তে বাংলাদেশ অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

হজ এজেন্টদের সংগঠন হজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (হাব) সভাপতি এম শাহাদাত হোসাইন তসলিম বেনারকে বলেন, “বর্তমানে আমাদের সংগঠনের সদস্য সংখ্যা এক হাজার ২৩৮। এসব প্রতিষ্ঠানে প্রায় ২০ হাজারের মতো কর্মকর্তা ও কর্মচারী রয়েছেন। তা ছাড়া পরোক্ষভাবে বাংলাদেশে ও সৌদি আরবে আরও প্রায় এক লাখ লোক এ পেশার সাথে জড়িত।”

তিনি বলেন, “বছরে হজকেন্দ্রিক লেনদেনের পরিমাণ প্রায় সাড়ে সাত হাজার কোটি টাকা। এবার সেই লেনদেন বন্ধ থাকবে। ফলে বড় ধরনের অর্থনৈতিক ধাক্কা আমাদের পোহাতে হবে।”

এর প্রভাব বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সেও পড়বে। বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলীর দেয়া সাম্প্রতিক তথ্য মতে, ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম ছয় মাসে (জুলাই- ডিসেম্বর) বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স করপূর্ব নিট লাভ করেছে ৪২৩ কোটি টাকা।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, বিমানের আয়ের বড় একটি অংশ আসে হজ ফ্লাইট থেকে। কারণ, দেশের সকল হজযাত্রীদের বহন করে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ও সৌদি এয়ারলাইন্স।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোকাব্বির হোসেন বেনারকে বলেন, “এখন সকল বাণিজ্যিক ফ্লাইট এমনিতে বন্ধ। সেখানে হজ ফ্লাইট চললে আমরা কিছু রাজস্বা পেতাম। সেটাও এ বছর পাওয়া যাবে না।”

আপনিও শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরি আরো খবর...
সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০১৮-অত্র পত্রিকায় প্রকাশিত কোন সংবাদ কোন ব্যক্তি বা কোন প্রতিষ্ঠানের মানহানিকর হলে কর্তৃপক্ষ দায়ী নহে। সকল লেখার স্বত্ব ও দায় লেখকের
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com
themesbazafatikcha54
//graizoah.com/afu.php?zoneid=3460431